ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণে মহা ওষুধ আমলকী!

মঙ্গলবার, ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ১১:০০ অপরাহ্ণ | 21 বার

ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণে মহা ওষুধ আমলকী!

আমলকী, প্রাচীনকাল থেকেই আয়ুর্বেদে ব্যবহৃত সবচেয়ে কার্যকর প্রাকৃতিক ওষুধগুলির মধ্যে একটি। তদনুসারে, বিভিন্ন স্বাস্থ্যবিধরা বিভিন্ন ধরণের জীবনধারার অসুস্থতা যেমন ত্বক এবং চুলের চিকিত্সায়,ওজন কমানোর জন্য আমলকী পাউডার ব্যবহার করেন। ফলটি সাধারণত তাজা বা মিষ্টি এবং সংরক্ষিত পণ্য হিসাবে ব্যবহৃত হয় যা আমলকীর মুরব্বা নামে পরিচিত।

ভিটামিন সি এবং খনিজ পদার্থ যেমন ক্যালসিয়াম, লোহা, ফসফরাস এবং ক্রোমিয়াম যা কিনা আমাদের গোটা স্বাস্থ্যের উন্নয়নের জন্য পরিচিত, এসব উপাদানের উত্স এই আমলকী। কিন্তু আপনি কি জানেন যে আমলাও ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রন করার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে? অবাক হলেন?হতে হবে না। আমলকী কীভাবে আপনার চিনির মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করতে পারে তা জানতে পড়ুন।

আমলকী যেভাবে ডায়বেটিস নিয়ন্ত্রণে সয়ায়তা করেঃ-

পুষ্টিবিদ ও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের কোচ মতে”আমলকী ভিটামিন সি এবং ত্বকের রোগ নিরাময়কারী পুষ্টি শক্তিশালী করে আপনার প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা তৈরি করে। এটি ইনসুলিন প্রতিরোধে এবং রক্তের উচ্চ শর্করার মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। এটি শরীর থেকে বিষাক্ততা এবং সেলুলার বিপাক নিরাময় করে,যা ডায়াবেটিকসের জন্য এটি দুর্দান্ত করে তোলে। আয়ুর্বেদ বিশেষজ্ঞের মতে,”আমলকী অনেক উপকারি;এটি ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রনে ব্যবহৃত হয়; এটি অ্যাসকরবিক এসিড,ট্যানিন এবং পলিফেনলসের মতো সমস্ত অ্যান্টিঅক্সিডেন্টসকে শরীরের প্রয়োজনীয় পরিমানে যোগান দেয়, যা লিপিড এবং লিভারে ট্রাইগ্লিসারাইডস কমানোর জন্য সাহায্য করে। বিপাক প্রক্রিয়া উন্নত করে।

জার্নাল অফ মেডিক্যাল ফুডে প্রকাশিত একটি গবেষণায়,আমলকীর নির্যাস ডায়াবেটিক প্রতিরোধে সুগারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে। গবেষণায় আরো দেখা গেছে যে, আমলকী বিপাকীয় প্রক্রিয়া সুন্দর ভাবে পরিচালনায় সাহায্য করে এবং ক্লান্তি দূর করতেও সয়াহতা করে। আমলকীতে ক্যালোরি কম,যা আপনার ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য এটি যথেষ্ট ভূমিকা রাখে।

অত্যধিক ক্যালোরি খাওয়ার ফলে ওজন বৃদ্ধি হতে পারে, যা ইনসুলিন প্রতিরোধের কারণ হতে পারে যা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে অসুবিধা হয়ে দাড়ায়। সুস্বাস্থ্য এর অধিকারী হতে চাইলে আপনার রক্তের সুগার লেভেল অবশ্যই নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। আমলাতে পলিফেনল রয়েছে, যা আমাদের শরীরকে উচ্চ রক্তচাপের কারণে অক্সিডেটিভ স্ট্রেস থেকে রক্ষা করে। ইনসুলিনের সঠিক পরিমান এবং রক্তের সুগারের মাত্রা হ্রাসের ক্ষেত্রে আমলা কার্যকর বলে মনে করা হয়।

আমলকী ফল হিসেবে,শুকনো এবং গুঁড়ো আকারে সহজে পাওয়া যায়। আমলকী খাওয়ার সর্বোত্তম উপায় হল প্রতিদিন সকালে তাজা আমলকীর রস পান করা। আপনি আপনার দৈনন্দিন খাবারে কিছু আমলা পাউডার ছিটিয়ে দিতে পারবেন এতে স্বাদ নষ্ট হবে না, বরং পুষ্টির মান বেড়ে যাবে। আমলকীর মুরব্বাও তৈরি করে রাখতে পারেন এতে করে অনেকদিন রেখে খেতে পারবেন।

আপনার খাদ্য তালিকায় আমলকী যুক্ত করার আগে ডাক্তার এর পরামর্শ নিন। কারন একই সাথে আমলকী ও ঔষধ রক্তে সুগারের পরিমান উল্লেখযোগ্য পরিমানে কমিয়ে দিতে পারে।

সূত্র: দশ দিগন্ত

Comments

comments

ডিসেম্বর ২০১৯
রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি
« নভেম্বর    
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  

২০১৭ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। নবধারা নিউজ | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।

Development by: webnewsdesign.com